ফণ্ট ডাউনলোড
নীড় অপালা ভবন

অপালা ভবন


২০০৬ সাল (১৪১৩ বঙ্গাব্দ) থেকে ছায়ানট সংস্কৃতি-ভবন চলছে নালন্দা বিদ্যালয়ের কার্যক্রম। প্রাক-প্রাথমিকসহ তেরোটি শ্রেণি পরিচালনা করছে নালন্দা । দিনে দিনে ছায়ানটের সাংস্কৃতিক কার্যক্রমের পরিধি বেড়ে যাওয়ায় সংস্কৃতি-ভবনে স্থানসংকট দেখা দিয়েছে। সংকট-মোচনে এগিয়ে এসেছেন দুরারোগ্য কর্কট রোগে ২০১১ সালে অকালে প্রয়াত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণরসায়ন ও অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর অপালা ফরহত নবেদের পরিবার। কেরানীগঞ্জের আটিবাজারের কাছে অপালার কেনা এক বিঘা জমি ছায়ানটকে দান করেছেন তাঁরা। তাঁদের এই সিদ্ধান্ত নিতে আরো উদ্বুদ্ধ করেছে অপালার পিতা, ছায়ানটের রূপকারদের অন্যতম, ওয়াহিদুল হকের জন্মভূমি কেরানীগঞ্জ ও ওই এলাকাবাসীর প্রতি সমাজসেবক অপালার অসীম ভালবাসা। দান করা জমিতে নির্মিতব্য ভবনের নাম অপালা-ভবন রাখবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ছায়ানট। আশা করা হচ্ছে,নির্মাণ কাজ শুরু করলে দুই বছরের মধ্যে অপালা-ভবন সম্পূর্ণ হবে। এতে নালন্দা তথা ছায়ানটের স্থানসংকট ঘুচবে,একই সঙ্গে রাজধানী সংলগ্ন জনপদে প্রসারিত হবে ছায়ানটের সংস্কৃতি-সাধনা ও সংস্কৃতি-সমন্বিত শিশুশিক্ষাদর্শন।
ছায়ানট সদস্য স্থপতি নাহাস খলিল এর মধ্যেই অপালা-ভবনের নকশা চূড়ান্ত করেছেন। সে অনুযায়ী ১৩০০০ বর্গফুট জমির মধ্যে উন্মুক্ত ভূমি ৫৮০০ বর্গফুট,খেলার মাঠ ৪০০০ বর্গফুট এবং ৭ তলায় মোট মেঝে ৫২৬৬০ বর্গফুট। থাকছে ১১৩০০ বর্গফুটের বেইসমেন্ট। ভবন পরিকল্পনায় আছে ৪১টি শ্রেণিকক্ষ;৩টি কার্যালয় কক্ষ;১১টি বাথরুম;২টি শিক্ষাকর্মীদের বসবার লাউন্জ;২টি পাঠাগার ও পাঠকক্ষ;২টি বিজ্ঞান গবেষণাগার;১টি কম্পিউটার ল্যাবরেটরি;১টি আই টি কক্ষ;১টি ডে-কেয়ার কক্ষ;১টি মিউজিক রুম;১টি রান্নাঘর;১টি ক্যান্টিন। ভূমি উন্নয়নসহ ভবন নির্মাণের প্রাক্কলিত ব্যয় তেরো কোটি টাকা।

দৃশ্য-শ্রাব্য সংগ্রহ

  • 
  • বর্ষবরণ ১৪২০ বিলকিস নাসিরুদ্দীনের সাথে আলাপচারী কনসার্ট ফর বাংলাদেশ রবি শংকর, রাগ যোগ
  • বর্ষবরণ ১৪২৩

    আমার সোনার…

    বর্ষবরণ ১৪২২

    ওয়াহিদুল হক…

আয়োজন সবগুলো..

২৬ কার্তিক, ১০ নভেম্বর
নৃত্য-উৎসব ১৪২৪

বিজ্ঞপ্তি সবগুলো..

সর্বশেষ প্রকাশনা